Breaking News
Home / সারাদেশ / নওগাঁয় আ’লীগ নেতা হত্যার রহস্য উদঘাটন : খুনি আটক
নওগাঁয় আ’লীগ নেতা হত্যার রহস্য উদঘাটন : খুনি আটক
নওগাঁয় আ’লীগ নেতা হত্যার রহস্য উদঘাটন : খুনি আটক

নওগাঁয় আ’লীগ নেতা হত্যার রহস্য উদঘাটন : খুনি আটক

মো: জাহাঙ্গীর আলম, পত্নীতলা, নওগাঁ প্রতিনিধিঃ

নওগাঁর পত্নীতলা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও নজিপুর পৌরসভার সাবেক প্রথম মেয়র ইসহাক হোসেন (৭৫) হত্যাকান্ডের প্রকৃত রহস্য উদঘাটিত হয়েছে। হত্যার সাথে জড়িত থাকার প্রধান খুনিকে মোবাইল নম্বর ট্রাকিং করে আটক করেছেন পত্নীতলা থানা পুলিশ।

পত্নীতলা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) পরিমল কুমার চক্রবর্তী জানান, গত বছরের ৪ ডিসেম্বর রাত্রি সাড়ে ৯টার দিকে নিজ বাড়িতে খুন হয়েছিলেন উপজেলা সদর নজিপুর পৌর এলাকার মামুদপুর গ্রামের মৃত মুন্সি খয়রুল্লাহ পুত্র উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও নজিপুর পৌরসভার সাবেক প্রথম মেয়র ইসহাক হোসেন (৭৫)।

পুলিশ অভিযান চালিয়ে ঘটনার ওইদিন রাতেই সন্দেহমূলক ভাবে নিহতের প্রতিবেশি ও নজিপুর পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আবুল কালাম আজাদ অরফে লিটু ফকিরসহ দুই জনকে গ্রেফতার করেন।

এরপর ইলেকট্রিক ডিভাইসের মাধ্যমে হত্যার রহস্য উদঘাটনে জেলা পুলিশ সুপার ইকবাল হোসেনের দিক নির্দেশনায় ও থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) জহুরুল হকের নেতৃত্বে এসআই রবিউল ইসলাম সঙ্গীয় ফোর্সের সহযোগিতায় ৮ দিন ধরে অভিযান চালিয়ে রাজধানী ঢাকার গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার ডাইনকিনি এলাকা হতে এ হত্যার প্রধান খুনী নওগাঁ জেলার রাণীনগর উপজেলার ভিটি উত্তরপাড়া গ্রামের মৃত আহম্মেদ আলীর পুত্র হারুন প্রমাণিক (৪৮) কে শনিবার আটক করা হয়।

এরপর তিনি গত ৬ এপ্রিল সেচ্ছায় এ হত্যাকান্ডের সাথে সরাসরি সম্পৃক্ত বলে বিজ্ঞ আদালতে ১৬৪ ধারা ফৌজদারি কার্যবিধি মোতাবেক
স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দী প্রদান করেন।

জবানবন্দীতে সে উল্লেখ করেন, ভিকটিম ইসাহাক সাহেবের সহিত আবুল কালাম আজাদ এর জমিজমা সংক্রান্ত পূর্ব বিরোধের জের ধরে হত্যাকান্ডের প্রায় ৩ মাস পূর্বে নওগাঁ জেলহাজতে থাকাকালীন তারা এ হত্যার পরিকল্পনা করেন।

জামিন পাবার পর আবুল কালাম আজাদ মুঠেফোনের মাধ্যমে যোগাযোগ করে তার নিজ বাড়িতে ডেকে নেয় ও ২লাখ ৩০ হাজার টাকার বিনিময়ে
ইসাহাক হত্যার প্রস্তুতি গ্রহণের চুক্তিপত্র হয়। আসামী হারুন, কবিরাজ বেশে আবুল কালাম আজাদের বড়িতে প্রায় দেড় মাস পূর্ব থেকে যাতায়াত করতে থাকেন।

পরে গত বছরের ৪ ডিসেম্বর আবুল কালাম আজাদের মুঠোফোনে বিভিন্ন সংকেত দিলে রাত ৯টার দিকে উপজেলা সদর আ’লীগ দলীয় কার্যালয় হতে মিটিং শেষে নিজ বাড়ি ফিরলে ইসাহাক হোসেনকে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে খুনিরা পালিয়ে যায়।

পরে পরিবার ও স্থানীয়রা ইসাহাককে পতœীতলা সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওইদিন রাত্রি পৌণে ১০টার দিকে তিনি মারা যান। পরে নিহতের শ্যালক উপজেলা আ’লীগের অন্যতম সদস্য আবুল কালাম আজাদ অরুণ পত্নীতলা থানায় একটি হত্যা মামলার দায়ের করেন।

About Tutul Rabiul

Check Also

বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে বিজিবি কর্তৃক বিএসএফকে মিষ্টি প্রদান

বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে বিজিবি কর্তৃক বিএসএফকে মিষ্টি প্রদান

সংবাদটি পড়া হয়েছে : 35 জাহাঙ্গীর আলম, পত্নীতলা, (নওগাঁ) প্রতিনিধি: বাংলা নববর্ষ-১৪২৬ উপলক্ষে ১৩ এপ্রিল …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!