রহনপুর-সিঙ্গাবাদ যাত্রীবাহী ট্রেন চালু বিষয়ে ভারতের আগ্রহ প্রকাশ

রহনপুর-সিঙ্গাবাদ যাত্রীবাহী ট্রেন চালু বিষয়ে ভারতের আগ্রহ প্রকাশ

এমরান আলী বাবু, ষ্টাফ রিপোর্টারঃ

বাংলাদেশের রহনপুর ও ভারতের সিঙ্গাবাদ রুট দিয়ে যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচলের আগ্রহ প্রকাশ করেছে ভারত। সম্প্রতি ভারতীয় দূতাবাসের কর্মকর্তারা রহনপুর রেলবন্দর পরিদর্শন করে এ রুট দিয়ে প্রস্তাবিত ( মৈত্রী-৩) রাজশাহী-কোলকাতা যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচলের বিষয়ে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন । বর্তমানে প্রস্তাবিত ( মৈত্রী-৩) রাজশাহী-কোলকাতা যাত্রীবাহী ট্রেন এ রুট দিয়ে চালু করার কথা রয়েছে।

বিষয়টি রুট সিলেকশন পর্যায়ে রয়েছে বলে জানাগেছে । এ রুট দিয়ে যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচলের অপেক্ষায় রয়েছে দু’দেশের জনসাধারন। বিশেষ করে রাজশাহী অঞ্চলের জনসাধারণের সাথে মালদহ ও মুর্শিদাবাদ জেলার জনসাধারণের আত্মীয়তার সম্পর্ক রয়েছে।

ফলে এ রুট দিয়ে যাত্রীবাহী ট্রেন চালু হলে রাজশাহী অঞ্চল তথা রাজশাহী,চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও নওগাঁ জেলার জনসাধারণ সহজেই মালদহ হয়ে কলকাতা সহ ভারতের বিভিন্ন স্থান ও নেপাল যাতায়াত করতে পারবে।

এছাড়া বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী স্টেশন রহনপুরে ইমিগ্রেশন কাস্টমস স্টেশন নির্মানে রেলওয়ের পর্যাপ্ত জায়গা রয়েছে। রহনপুর রেল স্টেশনে ওই ট্রেনের যাত্রা বিরতি এবং ইমিগ্রেশন ও কাস্টমস সম্পন্ন হলে চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও নওগাঁ জেলার জনসাধারণ উপকৃত হবে । ভারতের উত্তর মালদহ এলাকার বিজেপির লোকসভার সদস্য খগেন মুর্মু এ রুট দিয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে রেল যোগাযোগ স্থাপনের বিষয়ে কাজ করে যাচ্ছেন বলে ভারতীয় গণমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সম্প্রতি ভারত সফরের পর ভারতের সঙ্গে বন্ধ থাকা রেলরুট গুলো পূণরায় চালুর ঘোষনায় দু’দেশের জনসাধারণ আশান্বিত হয়েছে। এ রুট দিয়ে দ্রæত ট্রেন চলাচল শুরু হলে দুই দেশের ব্যবসা-বাণিজ্য সহ পর্যটন শিল্প বিকাশে যথেষ্ট ভূমিকা রাখবে। উল্লেখ্য, বর্তমানে এ রুট দিয়ে ভারত থেকে পন্য পরিবহন করা হয়ে থাকে।

এছাড়া এ রুট দিয়ে নেপাল মংলা সমুদ্র বন্দর দিয়ে আমদানি করা সার ট্রেনযোগে নেপালে নিয়ে গেছে।