বাক-প্রতিবন্ধী বিলকিসের শিক্ষা যুদ্ধ

বাক-প্রতিবন্ধী বিলকিসের শিক্ষা যুদ্ধ

ইখতিয়ার উদ্দীন আজাদ, নওগাঁ প্রতিনিধি

বাকপ্রতিবন্ধকতাও দমিয়ে রাখতে পারেনি বিলকিসের শিক্ষা জীবনকে। যুদ্ধ করে সব ধরণের প্রতিকূলতাকে পিছনে ফেলেঅন্য সুস্থ্য ছাত্রীদের ন্যায় চালিয়ে যাচ্ছে লেখাপড়া।


নওগাঁর জেলার সীমান্তবর্তী সাপাহার উপজেলার মানিকুড়া গ্রামের দিন মজুর আবুল কাশেম ও গৃহিণী ফিরোজা বেগমের কনিষ্ঠ কন্যা বিলকিস খাতুন মানিকুড়া দাখিল মাদ্রাসার ছাত্রী। বিলকিস চলমান জেডিসি পরীক্ষার্থী।

ভাগ্যের নির্মম পরিহাস ও কঠিন বাস্তবতায় তার ৪টি মেয়েই জন্মগত ভাবে বোবা। বড়ো দুইটি মেয়ের বিয়ে হয়ে গেলেও ছোট দুইটি মেয়ে রয়েই গেছে তার মধ্যে সর্ব কনিষ্ঠ বিলকিস।


বিলকিসের বাবা জানান, দিন মজুরের কাজ করে যা আয় হয় তা দিয়েই সংসার চালানোসহ মেয়ের লেখা পড়ার খরচ চালাতে গিয়ে অনেক সময় হিমশিম খেতে হয়। তার পরেও বোবা মেয়ের আবদার রাখতে লেখা পড়া চালাতেই হচ্ছে।


কোন প্রতিকূলতা আটকিয়ে রাখতে পারছেনা বিলকিস’র লেখা পড়া। সে কাগজে লিখে তার মনের ভাব প্রকাশ করে ।


বিলকিস জানায়, বড় হয়ে সে উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে বাক-প্রতিবন্ধীদের নিয়ে কাজ করতে চাই এবং জন্মভুমির সেবা করতে চায়।